শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২১ ১৪২৬   ১০ শা'বান ১৪৪১

ফতুল্লায় গ্যাসের আগুনে দগ্ধ আরও ২ জনের মৃত্যু 

প্রকাশিত: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : ফতুল্লার সাইনবোর্ড এলাকার সাহেবপাড়ায় গ্যাসের আগুনে দগ্ধ হওয়া একই পরিবারের ৮ জনের মধ্যে আরও দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। তারা হলেন-হিরণ মিয়া (২৩) ও আপন (১২)। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল পাঁচজনে।

 

মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান হিরণ মিয়া। আর সোমবার মধ্যরাতে মারা যায় আপন। ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

 

তিনি জানান, এর আগে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নুরজাহান বেগম (৬০), তার ছেলে কিরণ মিয়ার (৪৬) ও কিরণের ছেলে আবুল হোসেন ইমন (২৫) মারা যান। আজকে মারা যায় নুজাহান বেগমের অপর ছেলে হিরণ মিয়া (২৩) এবং কিরণ মিয়ার ছেলে আপন (১২)। চিকিৎসাধীন রয়েছেন ওই পরিবারটির আরও ৩ সদস্য। তবে তারা কেউই আশংকামুক্ত নন।

 

প্রসঙ্গত, ফতুল্লা থানার সাইনবোর্ড এলাকার সাহেবপাড়া এলাকায় বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তা ফারুক হোসেনের ৫ তলা বাড়ির নিচ তলায় একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন নূরজাহান বেগম ও তার পরিবারের সদস্যরা। গত ১৭ই ফেব্রুয়ারি ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে গ্যাসের চুলায় আগুন ধরাতে গিয়ে আগুনে দগ্ধ হন নুরজাহান বেগম। 

 

গ্যাসের চুলার চাবি চালু রেখে রাতে ঘুমিয়ে পড়ায় গ্যাস বের হয় পুরো ঘরে ছড়িয়ে যাওয়ার কারণে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এসময় তাকে বাঁচাতে গিয়ে দগ্ধ হন দুই ছেলে মেয়ে নাতিসহ একই পরিবারের আটজন। 

 

আগুনের ঘটনায় এ পর্যন্ত পাঁচজন মারা গেছেন। তবে এখনো চিকিৎসাধীন রয়েছেন নুরজাহান বেগমের ছেলে হিরণ মিয়ার স্ত্রী মুক্তা (২১), হিরণ মিয়ার মেয়ে ইলমা (৩) এবং ভাগিনা কাওসার (১৬)।

এই বিভাগের আরো খবর