রোববার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৩ ১৪২৬   ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

পায়ে লিখে সঞ্জু দাসের জেএসসি পরীক্ষা

প্রকাশিত: ৬ নভেম্বর ২০১৯  

আড়াইহাজার (যুগের চিন্তা ২৪)  : অন্য আটদশ শিক্ষার্থীর মতো নয় সঞ্জু দাসের জীবন। তার চলার ক্ষেত্রে রয়েছে নানা প্রতিবন্ধকতা। তার দু’টি পা থাকলেও নেই দু’টি হাত। তবে ইচ্ছা শক্তি তার শারীরিক প্রতিবন্ধীতা তাকে দমিয়ে রাখতে পারেনি। পা দিয়েই নিজেকে গড়ে তোলার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। 

তাই পায়ে লিখেই তিনি নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার স্থানীয় পুরিন্দা কেএম সাদেকুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে জেএসসি পরীক্ষা দিয়ে যাচ্ছেন। 

বুধবার ছিল তার ধর্ম পরীক্ষা। তিনি নরসিংদী জেলার সদর উপজেলার মাধবদী থানাধীন আমদিয়া ইউপির কান্দাইল এলাকার চিত্ত রঞ্জন দাসের ছেলে সঞ্জু দাস। মা শেফালী রানী দাস। একই এলাকার জবেদা ভূঁইয়া আর্দশ বিদ্যা নিকেতন স্কুল থেকে সে পঞ্চম শ্রেণি পাশ করে। 

এখন স্থানীয় বনাইদ বাবু মিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়ছেন। দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে সে মেঝো। তার বাবা চিত্ত রঞ্জন দাস জানান, ছেলের দু’হাত না থাকায় লেখাপড়া করানো ইচ্ছা ছিল না। তবে ছোট বেলা থেকেই লেখাপড়ার প্রতি তার প্রবল আগ্রহ ছিল। তার ইচ্ছা শক্তিই তাকে এতোদূর এগিয়েছে। 

কেন্দ্র সচিব ও পুরিন্দা কে এম ছাদেকুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক একে এম মফিজুল ইসলাম বলেন, সঞ্জু দাস অত্যন্ত মেধাবী ছাত্র। পায়ে লিখে সে পরীক্ষা দিয়ে যাচ্ছে। লেখাপড়ার প্রতি তার প্রবল ইচ্ছাই তাকে অনেকদূর এগিয়ে নেবে। তাকে দেখে অনেকেই পড়ালেখায় অনুপ্রাণিত হবেন। তবে তাকে সবাই সহযোগিতা করতে হবে। 

সঞ্জু দাস বলেন,‘আমার উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করার ইচ্ছা রয়েছে। আমি দ্ররিদ্র্য পরিবারের সন্তান। লেখাপড়া চালিয়ে যেতে সরকারের সহযোগিতা কামনা করছি।’
 

এই বিভাগের আরো খবর