শুক্রবার   ২৪ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১০ ১৪২৬   ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

নির্বাচন নিয়ে আইনজীবীরা ত্রিধাবিভক্ত

প্রকাশিত: ১৩ জানুয়ারি ২০২০  

যুগের চিন্তা রিপোর্ট : আসন্ন আইনজীবী সমিতি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আদালতপাড়ায় উত্তাপ, উত্তেজনার সঙ্গে আতঙ্কও ভর করেছে। আতঙ্কের কারণ, আদালত অঙ্গনে শতাধিক বহিরাগতের মহড়া, যেখানে কয়েকজন চিহ্নিত সন্ত্রাসীকেও দেখা গেছে। 


সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, গতকাল সকালে আইনজীবী সমিতির বর্তমান সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও সেক্রেটারী মোহসীন মিয়াকে নিয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজামের নেতৃত্বে শতাধিক লোকের একটি বহর আদালতপাড়া প্রদক্ষিণ করে। এদের মধ্যে যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ সহ বহিরাগতদের দেখা গেছে। 


এ শোডাউন সম্পর্কে আওয়ামী লীগ নেতা শাহ নিজাম বলেছেন, এটি শোডাউন নয়। একটি মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে এসেছি, খবর পেয়ে অনুসারীরা এসেছে। আমরা ডিজিটাল বার ভবনের নির্মান কাজ দেখেছি। 


শাহ নিজামের সঙ্গে ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল, মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এহসানুল হক নিপু, বর্তমান সভাপতি হাবিবুর রহমান, যুব লীগ নেতা জানে আলম বিপ্লব, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন প্রমুখ। এব্যাপারে আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড.হাসান ফেরদৌস জুয়েল বলেন, ‘হকার ইস্যুতে দায়ের করা মামলায় জামিন শুনানিতে অংশ নিতে আওয়ামী লীগ নেতা শাহ নিজামসহ অন্যান্যরা আদালতে এসেছিলেন। সোমবারও শুনানি রয়েছে। আদালতে কোন শোডাউনের ঘটনা ঘটেনি।’   


এদিকে, বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা কালো ব্যাজ পরে ঘোষিত নির্বাচন কমিশন বাতিল করে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের দাবীতে মিছিল ও সমাবেশ করেছে। সমাবেশে আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও মহানগর বিএনপি সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেছেন, ঘোষিত নির্বাচন কমিশনার গত বার সুষ্ঠু নির্বাচন দিতে ব্যার্থ হয়েছেন। তাকে আমরা চাই না। 


বহিরাগত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বহিরাগতরা আদালত অঙ্গন কুলষিত করছে। পেশীশক্তির দাপট দেখিয়ে তারা আদালত অঙ্গনে ভীতি সৃষ্টি করতে চায়। আমরা সকলের মতামতের ভিত্তিতে তলবী সভায় নতুন নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গড়বো। এ সময় সমাবেশস্থল ‘অবৈধ নির্বাচন কমিশন, মানি না, মানবো না’, ‘আদালত অঙ্গনে বহিরাগত, মানি না, মানবো না’ শ্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে।


ওদিকে, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন দাবি, প্যানেল গঠন ও তলবী সভার প্রস্তুতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে বাম ও আওয়ামী লীগেরই আরেক অংশ গণতান্ত্রিক আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ। সংবাদ সম্মেলনে জেলা ন্যাপ ও গনতান্ত্রিক আইনজীবী সমিতি সেক্রেটারী এড. আওলাদ হোসেন বলেন, এজিএম পূর্ণাঙ্গ হয়নি। নির্বাচন কমিশন গঠনে আইনজীবীদের কোন মতামত নেয়া হয়নি। তাই, অবিলম্বে এ কমিশন বাতিল করে তলবী সভার মাধ্যমে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে। আইনজীবীদের এই ত্রিধাবিভক্তি আদালতপাড়ায় শঙ্কার পরিবেশ সৃষ্টি করেছে।   


উল্লেখ্য, ঘোষিত সিডিউল অনুযায়ী আগামী ২৯ জানুয়ারি আইনজীবী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়ন সংগ্রহ ও দাখিলের তারিখ ১৩ থেকে ১৫ জানুয়ারি, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ও প্রাথমিক বৈধ প্রার্থী তালিকা প্রকাশ ১৬ জানুয়ারি, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের তারিখ ১৭ থেকে ১৯ জানুয়ারি, চূড়ান্ত বৈধ তালিকা প্রকাশ ২০ জানুয়ারি। ২৯ জানুয়ারী নির্মাণাধীন বারভবনের নিচতলায় এ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। 
 

এই বিভাগের আরো খবর