শুক্রবার   ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৯ ১৪২৬   ১৫ রবিউস সানি ১৪৪১

জীবনে একটাই নাটক করেছিলাম : শামীম ওসমান

প্রকাশিত: ৩০ নভেম্বর ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : মঞ্চ নাটক এখন বিলুপ্তির পথে উল্লেখ করে নিজেও এক সময় নাটক করেছেন বলে জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। তিনি বলেন, আসলে নাটক যিনিসটা বিশেষ করে মঞ্চ নাটক এটা মোটামুটি ভাবে অনেকটা বিলুপ্তির পথে। নারায়ণগঞ্জে ছোটবেলায় দেখতাম রেগুলার (নিয়মিত) মঞ্চ নাটক হতো। আমি নিজেও জীবনে একটা নাটক করেছিলাম প্রথমে; ওইটার মধ্যে আমার বাবা ছিলেন চিফ গেস্ট। নাটকটা হয়েছিলো গভঃগার্লস স্কুলে তো আমার বাবাকে দেখে নাটকের ডায়লগই ভুলে গিয়েছিলাম।  টেলিভিশনে নাটক করা খুব ইজি বিক্জ (কারণ) যদি কিছু হয়, তাহলে বলে ‘কাট’ এরপর আবার ঠিক করে দেয়। কিন্তু মঞ্চ নাটক আসলেই ডিফিকাল্ট কারণ ডায়লগ মুখস্থ রাখতে হয় এবং অনেক কিছু আছে যেমন পিছনের দিক দেখানো যাবেনা এমন অনেক কিছুই আছে।

 

শনিবার (৩০ নভেম্বর) রাতে জেলা গণগ্রন্থাগারে নারায়ণগঞ্জের সম্মিলিত নাট্যকর্মী জোটের নব নির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ শামীম ওসমান এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমি পার্লামেন্টে প্রায় সময়ই মজা করি যেমন, সবশেষ অধিবেশনেও আমি আমাদের আসাদুজ্জামান নুর ভাই আমাদের যে আছে তাকে আমি বললাম যে আপনি আমাকে একটা নাটকে সুযোগ দিলেননা, তো তিনি বলতেছে কি অভিনয় করবা? আমি বললাম একটা অভিনয় শুধু দিবেন আর যা দিবেন দিয়েন; মহিলা মানুষ শুধু ধরতে পারবো না এটায় সমস্যা আছে। এরপর তিনি (আসাদুজ্জামান নূর) বললেন আমি একটা নাটক করবো সেটার মধ্যে আমি জমিদার। তারপর আমি বললাম তাহলে আমি কি? তিনি বললেন তুমিই বলো তুমি কি? আমি বললাম আমি জমিদারের চামচা। তখন সুবর্ণা মোস্তফা বলতাছে আমি জমিদারনী এবং আমি বললাম কোন সমস্যা নেই। আসলে এই মাধ্যমটা আমি খুব পছন্দকরি। এই নাটকের মাধ্যমেই কিন্তু স্বাধীনতা সংগ্রামের কথা ছড়িয়ে দেয়া হয়েছিলো এবং তখন পাকিস্তানিরা বুঝতনা যে কিভাবে নাটকের মাধ্যমে মানুষকে উজ্জিবীত করা হচ্ছে।

নাট্যকর্মীদের উদ্দ্যেশে তিনি বলেন,  পৌর পাঠাগার ছিলো আগে শুনলাম ওইটার আবস্থা খুবই খারাপ নাটক করার উপযুক্ত নয়, জিয়াহল আছে ওইটার অবস্থা খুবই খারাপ শিল্পকলা ভবন দেরি হচ্ছে আমি এটাকে তরান্বিত করার চেষ্টা করবো যাতে খুব দ্রুত হয়। এটা শীতের মৌসুম চাইলে মঞ্চ তৈরী করে মাঠে নাটক করা যায় তবে আপনারা উদ্যোগ নেন নাটক করার জন্য যত রকমের সহযোগিতা লাগবে আমি করবো। পারলে আমারেও একটা ছোটখাটো রোল দিও আমিও অভিনয় করবো। আমি চাই, আমার খুব নাটক করতে ইচ্ছে করে। সারা দুনিয়াতে এবং নারায়ণগঞ্জে যত নাটক চলতেছে এখন সেই নাটক দেখতে দেখতে নাটক মোটামুটি শিখে গেছি আসল আর নকল কোনটা সেটা বোঝাই যায়না।

তিনি আরো বলেন, নাটক করার জন্য যেটা সবচেয়ে বেশি দরকার উৎসাহ ও অর্থ আমি যতটুকু পারি এই দুটোই আমি করবো কিন্তু আপনারা দেরি করবেন না। সামনে বিজয়ের মাস ডিসেম্বর মাস এটাই তো নাটকের সময় এই বিষয়গুলো মাথায় রেখে নাটক করেন। একটা মঞ্চ করেন পর পর সিরিয়ালে আপনারা নাটক করেন তাহলে দেখবেন নতুন প্রজন্ম দেখবেন এই নাটকের প্রতি আবারও আকৃষ্ট হবে।

 

নারায়ণগঞ্জ জেলা নাট্যকর্মী জোটের সভাপতি হুমায়ূন কবীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন,  জেলা কালচারাল অফিসার রুনা লায়লা, সম্মিলিত নাট্যকরমী জোটের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা মিন্টু, সিনিয়র সহ সভাপতি দেওয়ান মো হানিফ ,নাট্যকমিটির সহ-সভাপতি শাহজাহান, পানি উন্নয়ন বোডের প্রধান প্রকৌশলী মো আজিজুল হক কেন্দ্রীয় তিতাস গ্যাস কর্মচারী ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি কাজিম উদ্দিন প্রধান, নারায়ণগঞ্জ সিটি করর্পোরেশনের  ১০ ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইফতেখার আলম খোকন, ১৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাজমুল আলম সজল, বিকেএমইএর পরিচালক কবির হোসেন প্রমুখ।
 

এই বিভাগের আরো খবর