বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯   আশ্বিন ৩০ ১৪২৬   ১৬ সফর ১৪৪১

জিল্লু বেকারীতে ভেজাল খাদ্য পণ্য উৎপাদন : জরিমানা

প্রকাশিত: ৭ অক্টোবর ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : নগরীরর পশ্চিম তল্লা এলাকার অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে খাদ্য পণ্য তৈরির অভিযোগে একটি বেকারী কারখানাকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। একই সাথে এক কর্মারীকে এক মাসের কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। 


সোমবার বিকেলে জেলা প্রশাসনের নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট জাহাঙ্গীর আলমের নের্তৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত তল্লা এলাকায় অবস্থিত জিল্লু বেকারীতে ভেজাল বিরোধী এ অভিযান চালায়। জেলা গোয়েন্দা পুলিশ এ অভিযানে সহায়তা করে। 


নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট জাহাঙ্গীর আলম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ জানতে পারে তল্লা এলাকায় জিল্লু বেকারীর কারখানায়  অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে কেক, বিস্কুট, পাউরুটি, মিষ্টি ও বার্গারসহ বিভিন্ন ধরনের খাদ্য পণ্য উৎপাদন করা হচ্ছে। সেই তথ্যের ভিত্তিতে বিকেলে ভ্রাম্যমান আদালত ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশ যৌথভাবে কারখানাটিতে অভিযান চালিয়ে এর সত্যতা পায়। 


তিনি আরো জানান, এর পাশাপাশি কারখানাটিতে খাদ্য পণ্য উৎপাদন সামগ্রীগুলোতে বিষাক্ত রং, কেমিক্যাল ব্যবহারসহ ধরনের ভোজালের নানা আলামত পাওয়া যায়। পরে ভ্রাম্যমান আদালত অবৈধ প্রক্রিয়ায় খাদ্য পণ্য উৎপাদনের অভিযোগে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে কারখানার মালিক জিল্লুর রহমান, তার বড় ভাই আলমগীর, বেকারির দুই কর্মচারী ওমর ফারুক এবং সোহরাবকে আটক করে এক মাস করে কারাদন্ড ও অনাদায়ে পঞ্চাশ হাজার টাকা করে মোট দুই লাখ টাকা জরিমানা করেন। 


আটককৃতরা দুই লাখ টাকা জরিমানা পরিশোধ করলে তাদের তিনজনকে ছেড়ে দেয়া হয়। তবে আটককৃত আলমগীরকে এক মাসের কারাদন্ড বহাল রাখা হয়। পরে নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট তাদেরকে কঠোরভাবে সতর্ক করে দেন।
 

এই বিভাগের আরো খবর