সোমবার   ১৭ জুন ২০১৯   আষাঢ় ৪ ১৪২৬   ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

চাঁদাদাবি করে আইনজীবীকে মারধর, হত্যার হুমকি

প্রকাশিত: ১০ জুন ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় রহিম মার্কেট এলাকায় চাঁদাদাবি করে আব্দুল মান্নান (৪৫) নামে এক আইনজীবীকে মারধর করে আহত করার ঘটনা ঘটেছে। 


এছাড়া চাঁদা না দিলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এঘটনায় ৩ জনকে আসামী করে সোমবার (১০ জুন) দুপুরে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ‘ক’ অঞ্চলে মামলা দায়ের করেছেন এড.আব্দুল মান্নান। আদালত সিদ্ধিরগঞ্জ থানাকে এজহার হিসেবে গ্রহণের জন্য আদেশ দিয়েছেন।  

 
মামলায় এড.আব্দুল মান্নান উল্লেখ করেন,  মামলার আসামী রহিম মার্কেট এলাকার মৃত আঃ জলিলের ছেলে নূর মোহাম্মদ (৪০), মৃত সিরাজ মিয়ার ছেলে শাহ আলম (৪৫), এবং মৃত মহিউদ্দিনের ছেলে আতাউর (২৬) একদল পরবিত্তলোভী , পর অর্থলোভী, চাঁদাবাজ, ভূমিদস্যু, সন্ত্রাসী, জবরদখলকারী ভুমি আত্মসাতকারী, চাঁদাবাজ প্রকৃতির লোক।  তাদের নির্দিষ্ট কোন পেশা নাই। 


তারা এলাকায় মাদক  ব্যবসা, বিভিন্ন দোকান/বাড়ী থেকে চাঁদা তোলা ইত্যাদি বেআইনী কাজ করেই জীবিকা নির্বাহ করে। তারা চাঁদার দাবী পরিপুর্ন করতে না পারলে বিভিন্ন উপায়ে বিভিন্ন লোকজনকে  হয়রানিসহ খুন জখমের হুমকি দিয়ে থাকেন । নিত্যদিন চাঁদাবাজির ঘটনা নিয়ে বিভিন্ন লোকজনকে মারধর করে থাকেন। 


তাদের অত্যাচারে এবং উৎপাতে এলাকার লোকজন অতিষ্ঠ। ঘটনারস্থলের কাছাকাছি এড.আব্দুল মান্নানের বাড়ি। আসামিরা বিভিন্ন উপায়ে মান্নানের নিকট ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছে।


মান্নান নিজে একজন আইনজীবী হওয়ায় সকল সময় চাঁদাবাজীর বিষয়টি বিশেষ ভাবে আমলে না নিয়ে বিভিন্ন ভাবে এড়িয়ে চলতে থাকেন। আসামীরা পারস্পরিক যোগাসাজসিক করিয়া মান্নানের বাড়ীতে গণউৎপাত সৃষ্টি করিয়া বিভিন্ন নোংরা মংয়লা আবর্জনা বাদীর বাড়ির গেটের সামনে, গেটের ভিতরে এবং ছাদের উপওে ফেলে রেখে বিভিন্ন উৎপাত সৃষ্টি করা শুরু করে । এবং মান্নানের বাড়ির ভাড়াটিয়াদেরকে বিভিন্নভাবে বাসা ছেড়ে দেয়ার জন্য হুমকি প্রদান করেন। 


এসবের প্রতিবাদ করায় আসামীরা পারস্পরিক যোগসাজশ করে আরও অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোকজন নিয়ে দেশী বিদেশী অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে এড.মান্নানের নাম ধরে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। মান্নান বাড়ি থেকে বের হয়ে গালিগালাজ করার কারণ নূর মোহাম্মদ আগের মতোই ৫ লাখ টাকা দাবি করেন। 


তখন বাদী চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে শাহ আলম  ও আতাউরও  নূর মোহাম্মদের সাথে চাঁদার টাকা দাবি করে।  তার বলতে থাকে চাঁদা না দিলে মান্নানকে এলাকায় থাকতে দিবে না এবং তার বাড়ির ভাড়াটিয়াগণকে তাড়াইয়া দিবেন । 
 
মান্নান চাঁদা দিতে অস্বীকার করিলে আসামীরা ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের হাতে থাকা লাঠি দিয়া তাকে মারাতœক নীলাফুলা জখম হয়। তারা মান্নানকে দুই হাত দিয়ে গলায় হত্যার উদ্দেশ্যে চেপে ধরে শ্বাসরোধ করার চেষ্টা করে। এবং চাকু দিয়া মান্নানের গলা ঠেকাইয়া বলেন চাঁদা না দিলে তোকে জীবনে মারিয়া ফেলবো। 


এসময় তারা ২০ হাজার টাকা মূল্যের একটি মোবইল ফোন এবং মান্নানের গলায় থাকা আট আনি ওজনের স্বর্ণের চেইন মূল্য ২৫ হাজার টাকা জোর করে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। 


মান্নান ডাক চিৎকার শুরু করিলে আশে পাশের লোকজন দ্রুত এগিয়ে আসলে লোকজনের অধিক উপস্থিতর কারণে আসামীরা চাঁদা না দিলে মান্নানকে জীবনে জানে মেরে ফেলার  হুমকি দিয়া দ্রুত ঘটনাস্থলে ত্যাগ করে। 


ঘটনার পর বাদী কিছুটা অসুস্থ থাকায় স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা করাইয়া ঘটনার বিষয়ে থানায় মামলা করিতে গেলে থানা কর্তৃপক্ষ মামলা নিতে গড়িমসি করায় আদালতে মামলা দায়ের করেন এড. মান্নান।  
 

এই বিভাগের আরো খবর