বৃহস্পতিবার   ০৯ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২৬ ১৪২৬   ১৫ শা'বান ১৪৪১

ওরস্যালাইন কমিটি দিয়ে দলকে আর দুর্বল করবেন না : খোরশেদ

প্রকাশিত: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রতি অনুরোধ করে মহানগর যুবদলের সভাপতি মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ বলেছেন, কর্মীদের প্রতি ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করেন। ওরস্যালাইন কমিটি দিয়ে দলকে আর দুর্বল করবেন না। যারা দলের ত্যাগী কর্মী তাদেরকেই কমিটিতে পদ দিবেন। দলের মধ্যে সাংগঠনিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করতে পারলে দুই মাসের মধ্যেই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্র ফিরিয়ে এনে জনগণের ভোটারাধিকার প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব। 

 

বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে মাসদাইর এলাকার মজলুম মিলনায়তনে মহানগর যুবদলের সাংগঠনিক প্রতিনিধি সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

 

প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় যুবদলের সহসভাপতি জাকির হোসেন নান্নু । বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন আনু, সহসাধারণ সম্পাদক, জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি মোশারফ হোসেন, সহসাংগঠনিক সম্পাদক মহসিন হোসেন বিদ্যুৎ।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাকির হোসেন নান্নু বলেন, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মহোদয়ের সাথে আমাদের আলোচনা হয়েছে। কেন্দ্রীয় নেতাদের পিছনে আপনাদের দৌঁড়াতে হবে না। আমরা আপনাদের পিছনে দৌঁড়াবো। তৃণমূলের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করা হবে। এখন থেকে কোন ভাইয়ের লোক কমিটিতে স্থান পাবে না। যারা কোন ভাইকে দিয়ে তদবির করাবেন তারা নিজেরাই নিজেদের ক্ষতি করবেন। 

 

তিনি আরও বলেন, আজকের সভায় সঙ্গত কারণ ছাড়া যারা অনুপস্থিত রয়েছেন তাদেরকে কমিটিতে জায়গা দেয়া হবে না। ঘরে বসে থাকবেন মিটিংয়ে আসবেন না আন্দোলন করবেন না তাদেরকে দলের দরকার নেই। ত্যাগীদের নেতাদেরকে কমিটিতে পদ দেয়ার মাধ্যমে দলকে শক্তিশালী করা হবে। আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।

 

মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মমতাজ উদ্দিন মন্তু ও সাংগঠনিক সম্পাদক রশিদুর রহমান রশোর সঞ্চালনায় প্রতিনিধি সভায় উপস্থিত ছিলেন সহসভাপতি মনোয়ার হোসেন শোখন, সানোয়ার হোসেন, আনোয়ার হোসেন আনু, আকতার হোসেন খোকন শাহ, জুয়েল প্রধান, জুয়েল রানা, আমির হোসেন, ইছালউদ্দিন ইশা, রিটন  দে, সরকার মুজিব, ইউনুছ খান বিপ্লব, নাজমুল কবীর নাহিদ, নাজমুল হক রানা, আহম্মদ আলী, জানে আলম দুলাল, আকতার  হোসেন সবুজ, ফয়েজ আহম্মেদ, আব্দুর রহমান, গোলাম কিবরিয়া, হারুনুর রশীদ লিটন, শেখ মোঃ সেলিম, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আলী নওশাদ তুষার, ইকবাল হোসেন, নজরুল ইসলাম, আল-আমিন খান, শেখ রুহুল আমিন রাহুল, মাহাবুব হাসান জুলহাস, মনিরুজ্জামান পিন্ট, ফিরোজ আহম্মদ, নুর এলাহী সোহাগ, কাজী সোহাগ, মোকতার ভূইয়া, সোহেল খান বাবু, মিজানুর রহমান, শেখ মো. অপু, আক্তার হোসেন অপু, সহসাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন মাহমুদ ফয়সাল, শহীদুল ইসলাম, সাইফুর রহমান প্রধান, জাকির হোসেন সেন্টু, সাইদুর রহমান বাবু, আবুল হোসেন রিপন, ফয়সাল মাহমুদ, সহসাংগঠনিক সম্পাদক পারভেজ খান, আরমান হোসেন, নুর এজাজ আহম্মেদ, কাওসার আহম্মেদ ও সাহেব উল্লাহ রোমান, যুবদল নেতা মো. শহীদ, মো. রানা মুন্সি, মো. মুসা, মো. বাদশা, আফতাব উদ্দিন, সেলিম, আল আমিন, উসমান গনি, সাঈদ, ইমন ও রিপন প্রমুখ।

এই বিভাগের আরো খবর