শনিবার   ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৯ ১৪২৬   ১৬ রবিউস সানি ১৪৪১

এসপি হারুনকে আমি ভীষণভাবে পছন্দ করতাম : সেলিম ওসমান

প্রকাশিত: ১৩ নভেম্বর ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) :  নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ ও বিকেএমইএ’র সভাপতি একেএম সেলিম ওসমান সদ্য বদলি হওয়া পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ প্রসঙ্গে বলেছেন, ব্যক্তিগতভাবে আমি (এসপি হারুন) তাকে ভীষণভাবে পছন্দ করতাম। তিনিও আমাকে ভীষণভাবে পছন্দ করতেন। আমরা একে অপরের প্রশংসা করতাম। কিন্তু মানুষের মধ্যে একটা আতঙ্ক ঢুকে গেল; পুলিশ মানেই ভীতিকর একটা অবস্থা। কিন্তু পুলিশ মানে হচ্ছে জনগণের বন্ধু। 

 

বুধবার (১৩ নভেম্বর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার সস্তাপুর এলাকায় আমন্ত্রণ কনভেনশন সেন্টারে নারায়ণগঞ্জ কর অঞ্চলের উদ্যোগে ২০১৯-২০২০ কর বর্ষের করদাতাদের সন্মাননা প্রদান ও আয়কর মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।  

 

সেলিম ওসমান বলেন, নারায়ণগঞ্জের এক উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে একটি উদাহরণ দিয়ে বলেছিলাম যে, ‘পুলিশ চাইলে বাসর ঘরেও ঢুকতে পারে’। কিন্তু পুলিশকে বুঝতে হবে যে এটা ঠিক কি না! এ উদাহরণ দেয়ার কারণ ছিলো  নারায়ণগঞ্জে বার বার হানা এইটা ওটায় নারায়ণগঞ্জের মানুষকে অস্থির করে তুলেছিলো। তারপর হঠাৎ একটা ঘটনা ঘটে গেল। ঠিক সেরকমই এই ট্যাক্সেস অফিস ট্যাক্সের খাতা জব্দ করতে পারবে, ট্যাক্সের জন্য জোরও করতে পারবে এটাতে কোন ভুল নাই।  

 

করদেয়ার উপর গুরুত্বারোপ করে এই ব্যবসায়ীক নেতা আরো বলেন, আমরা যারা হিসাব ও নিয়মানুযায়ী ট্যাক্স দেই তাহলে কিন্তু আমরা দেশের উন্নয়নকে তা এগিয়ে নিয়ে যাব। তার জন্য মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। ঠিক যেভাবে আল্লাহ্তায়ালা মানুষকে যাকাত দেয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করেছেন

 

কর দিতে তরুণ ও নারী উদ্যেক্তাদের উদ্বুদ্ধ করার আহবান জানিয়ে সেলিম ওসমান বলেন,  কর অফিসে যারা কাজ করছেন তারা যদি উদ্বুদ্ধ করতে পারেন তাহলে দেখা যাবে তরুণ প্রজন্ম উদ্বুদ্ধ হবে কর দেয়ার জন্য। ট্যাক্স দেয়ার অভ্যাসটা তৈরি করতে হবে। যেমন আমার পরিবার থেকে আজকের কর কমিশন থেকে যে পুরস্কার এটা কিন্তু আমারই পাওয়ার কথা। কিন্তু পুরস্কারটা উনি (নাসরিন ওসমান) পেলেন। উনি পাচ্ছেন কারণ আমি উনার নামে ট্যাক্সটা দিয়েছি।

প্রায় ৮০০ কোটি টাকা কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে নারায়ণগঞ্জ কর অঞ্চলের উদ্যোগে ২০১৯-২০২০ কর বর্ষের আয়কর মেলার উদ্বোধন করা হয়। এবার নতুন করে ১৫ হাজার করদাতা সৃষ্টি এবং ১ লাখ ৪৭ হাজার ইটিআইএন করদাতা তৈরির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। গত অর্থবছরে ৭০০ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে ৫৭২ কোটি ২৯ লাখ টাকা আদায় করা হয়। রিটার্ন দাখিলের সংখ্যা ছিলো ৪৬ হাজার ৫০০ জন। দীর্ঘ মেয়াদী ও সর্বোচ্চ করদাতাদের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সিগঞ্জের ২১ জনকে সন্মাননা প্রদান করা হয়। কর মেলা চলবে ১৪ থেকে ১৭ নভেম্বর। এছাড়া ১৬ থেকে ১৯ নভেম্বর মুন্সীগঞ্জ জেলার শিল্পকলা একাডেমীতে, ১৭ থেকে ১৮ নভেম্বর রূপগঞ্জ আয়কর অফিস প্রাঙ্গণে এবং ১৯ থেকে ২০ নভেম্বর সোনারগাঁ উপজেলায় আয়কর অফিসে প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত আয়কর মেলা চলবে।

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ কর কমিশনার মো.নাজমুল করিমের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রেহেনা আক্তার, অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার মেহেদি ইমরান সিদ্দিকী, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাষ্টিজ এর সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, সেলিম ওসমান পত্মী নাসরিন ওসমান। 

 

নারায়ণগঞ্জের শ্রেষ্ঠ তরুণ করদাতা হিসেবে সাংসদ সেলিম ওসমানের ভাতিজা ও সাংসদ শামীম ওসমানের ছেলে অয়ন ওসমান, শ্রেষ্ঠ নারী করদাতা হিসেবে নাসরীন ওসমান পুরস্কার পেয়েছেন। 


এছাড়া অতিরিক্ত কর কমিশনার আব্দুস সবুর খান, যুগ্ম কর কমিশনার শাহ মোহাম্মদ ইত্তেদা হাসান, মো.মিজানুর রহমান, উপ-কর কমিশনার (সদর দপ্তর-প্রশাসন) মো.সাজিদুল ইসলাম, (সদর দপ্তর প্রায়োগিক) মো.নাজমুল ইসলাম ও বাংলাদেশ ট্যাক্সেস এমপ্লয়ীজ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব লোকমান আহম্মেদ উপস্থিত ছিলেন।  
 


 

এই বিভাগের আরো খবর