মঙ্গলবার   ১৯ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৪ ১৪২৬   ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে স্কুলগুলোতে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ

প্রকাশিত: ১০ নভেম্বর ২০১৮  

বিশেষ সংবাদদাতা (যুগের চিন্তা ২৪) : শিক্ষা বোর্ডের নির্দেশ উপেক্ষা করে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্কুলে ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ফরম পুরণের জন্য আদায় করা হচ্ছে অতিরিক্ত ফি। অভিযোগ রয়েছে সরকার নির্ধারিত ফি এর চেয়ে এসব স্কুলে কয়েক গুণ টাকা আদায় করা হচ্ছে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগের জন্য ১হাজার ৬’শ ৫০টাকা এবং মানবিক ও ব্যবসায় বিজ্ঞানের জন্য ১হাজার ৫’শ ৫০টাকা নির্ধারণ করা হলেও জেলার শুধুমাত্র কয়েকটি স্কুল ছাড়া অধিকাংশ স্কুলগুলোতে এ অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

তবে জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়া জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে সকল স্কুলের এসএসসি পরীক্ষার অতিরিক্ত ফি আদায়ের বিষয়টি তদন্ত করার জন্য একটি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে একটি কমিটি করা হয়েছে। তারা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছেন।

বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের অভিযোগ, মর্গ্যাণ গার্লস স্কুলে দুইটি মডেল টেষ্টের ফি সহ ৪ হাজার ৮’শ টাকা, গণবিদ্যা নিকেতনে ৫হাজার ৬’শটাকা, আমলাপাড়া গার্লস স্কুলে ৪হাজার ৮’শ টাকা, আমলাপাড়া আইডিয়াল স্কুল ৮হাজর ৫’শটাকা, জয়গোবিন্দ হাই স্কুলে ৪হাজার ২’শ টাকা, হাজাীগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিবিদ্যানিকেতনে ৫হাজার ৫’শ টাকা বন্দর বিএম ইউনিয়ন হাই স্কুলে ৪ হাজার টাকা নিচ্ছে। সরকারী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে এবং আইইটি সরকারী বালক বিদ্যালয়ে  ২হাজার ৩’শ টাকা আদায় করা হচ্ছে।

এদিকে শনিবার বিকেলে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের নিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় অতিরিক্ত ফি আদায়েয়ের বিষয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের অতিরিক্ত ফি আদায় বন্ধ করার নির্দেশ দেয়া হয়।

এদিকে মর্গ্যাণ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অশোক তরু জানান, পরিচালনা পরিষদের অনুমোদন অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ফরম ফিলাপের চার্জ, বেতন,মডেল টেষ্টের ফি বাবদ ৪হ াজার ৮’শ টাকা নেয়া হচ্ছে।

অপরদিকে নারায়ণগঞ্জ হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক কমল কান্তি সাহা জানান, তিনি বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ১হাজার ৭’শ টাকা এবং মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ১হাজার ৬’শ টাকা নিচ্ছেন।

বিভিন্ন স্কুলের অভিভাবকরা জানান, তাদের সন্তানদের এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের টাকা যোগাড় করতে হিমশিম খাচ্ছেন। মর্গ্যাণ স্কুলের অভিভাবক হোসনে আরা জানান, তিনি একজন গার্মেন্টস শ্রমিক। তার মেয়ের ফরম পুরণের জন্য সুদে টাকা এনে স্কুলে প্রদান করেছেন।

এ অনিয়মের ব্যাপারে জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়া জানান, তিনি বিভিন্ন মাধ্যমে স্কুল গুলোতে অতিরিক্ত ফি আদায়ের বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছেন। এ ব্যাপারে তদন্তের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের তদন্তের জন্য নির্দেশ দিয়ে একটি কমিটি করে দেয়া হয়েছে। তিনি জানান, আমার কাছে যে কোনো অভিভাবক সরাসরি অভিযোগ করলে তাৎক্ষনিকভাবে ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

এই বিভাগের আরো খবর