বৃহস্পতিবার   ১৪ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ৩০ ১৪২৬   ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

এক আবরার লোকান্তরে, ১৭ আবরার বুয়েটে!

প্রকাশিত: ২৮ অক্টোবর ২০১৯  

ডেস্ক রিপোর্ট (যুগের চিন্তা ২৪) : চলতি শিক্ষাবর্ষে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) স্নাতক শ্রেণির প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়েছে। শনিবার (২৬ অক্টোবর) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ড এবং ওয়েবসাইটে এ ফল প্রকাশ হয়।


বুয়েটের প্রকাশিত ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলে দেখা যায়, এবছর নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের মধ্যে ১৭ জন আবরার রয়েছেন। এদের মধ্যে মেধা তালিকায় ১৫ জন, আর অপেক্ষমাণ তালিকায় রয়েছেন দুজন।পুরো নাম ভিন্ন হলেও নামের সাথে আবরার শব্দটা আছে প্রত্যেকেরই।বিষয়টি ইতিমধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।


ভর্তি পরীক্ষায় স্থাপত্য অনুষদে প্রথমস্থান অধিকার করেছেন রাজধানীর আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থী কাজী আবরার মাহমুদ। এছাড়াও যারা মেধাতালিকায় নির্বাচিত হয়েছেন- আবরার আল শহীদ আবির (৬৬তম), আবরার মো. মাহির (৮২তম), আবরার মাহমুদ (১৯৩তম), কাজী আবরার মাহমুদ (২৪২তম), মো. আবরার জাহিন (২৯২তম), আবরার ফাইয়াজ ইরাম (৩০১তম), আবরার জাহিন নিলয় (৩১৪তম), মো. আবরার জাহিন চৌধুরী (৩৪৫), আবরার মিশকাত (৪৭৮তম), আবরার আহমেদ (৬৭০তম), আবরার ফাইয়াজ মাহবুব নাশিক (৭৪৮তম), আবরার হামিম মাসিহ (৮৪৭তম), মোস্তফা আবরার মাহির (৯১৪তম), আবরার বিন সালাহ উদ্দিন (৯৩০তম)।


অপেক্ষমাণ তালিকায় নির্বাচিত হয়েছেন-মো. মাহির আবরার খান (১০৫৪তম), আবরার আবদুল্লাহ দিয়াম (১০৭২তম)।


৬ অক্টোবর (রোববার) রাতে বুয়েটের শের-ই বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পেটান বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতা। পরে দিবাগত রাত তিনটার দিকে হলের দোতলা ও নিচতলার মাঝামাঝি থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত আবরার বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (১৭তম ব্যাচ) শিক্ষার্থী ছিল।


এ ঘটনায় ছাত্রলীগের ১৯ জনকে আসামি করে সোমবার সন্ধ্যায় চকবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা করেন আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ। পরে সেই হত্যাকা-ের বিচারের দাবিতে উত্তাল হয় বুয়েটসহ সারা দেশ। মামলায় এখন পটর্যন্ত মোট ২১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।


বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় প্রথম স্থান অধিকার এবং অপেক্ষামানসহ মোট ১৭ জনের নামের সাথে আবরার ফাহাদের নামের মিল থাকায় বলা যায় ‘এক আবরার লোকান্তরে, ১৭ আবরার বুয়েটে।’

এই বিভাগের আরো খবর