শুক্রবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৪ ১৪২৬   ২০ মুহররম ১৪৪১

একযুগেও সংস্কার হয়নি দক্ষিণ সস্তাপুরের সড়কটি, জনদূর্ভোগ চরমে 

প্রকাশিত: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : পরিকল্পিত ড্রেনেজ পানি নিষ্কাশনের সুব্যবস্থা না থাকায় কারনে জলাবদ্ধতার  সৃষ্টি ফতুল্লা দক্ষিণ সস্তাপুরের সড়কটি। ফলে চরম জনদূর্ভোগে পড়তে হচ্ছে চলাচলরত স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী, সরকারী কর্মকর্তা ও শিল্প কারখানার শ্রমিকসহ এলাকাবাসীর। দীর্ঘদিন ধরে এমন অবস্থার সৃষ্টি হলেও কর্তৃপক্ষ সড়টির সংস্কারের কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। 

সরেজমিনে  দেখা যায়, দক্ষিণ সস্তাপুরের এই সড়কটি প্রায় একযুগ ধরে কোন উন্নয়নের কাজ না হওয়ায় এমন বেহাল দর্শা। দক্ষিণ সস্তাপুর বাইতুল আকসা হতে শুরু হয়ে খানকা শরিফের  আগ পর্যন্ত সড়কটির পাশে মসজিদ, স্কুল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। 

রাস্তা নিচু হওয়ায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে এখানে পানি জমে যায়। ফলে চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় স্কুলের শিক্ষার্থী মসজিদের মুসল্লীগণ এমনকি শিল্প কারখানা শ্রমিক ও জনসাধারনের।

এলাকাবাসি যুগের চিন্তা ২৪কে জানান, জনপ্রতিনিধি থাকা স্বর্থেও প্রায় একযুগ ধরে দক্ষিণ সস্তাপুর এ সড়কের বেহালদশা দেখার কেউ নেই। জলাবদ্ধতার কারনে সড়কটি দিয়ে চলাচল করা যায় না। 

বর্তমানে বৃষ্টি না হলেও কোমর পানি জমে একাকার হয়ে আছে। ফলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় সাধারন মানুষকে। পরিকল্পিত পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় এ সড়ক দিয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পরেছে। ফলে বাধ্য হয়েই কোমড় পানি ভেঙ্গে রাস্তায় চলাচল করতে বাধ্য হয়। 

এছাড়া রাস্তা দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচলের কারনেও রাস্তার বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। ফলে প্রতিনিয়ত ছোট-বড় দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে।

দক্ষিণ সস্তাপুরের স্থানীয় বাড়ী আলা লোকমান মিয়া অভিযোগ করেন জলাবদ্ধতার কারনে সড়কটির পানি উপচে পড়ে একাকার হয়ে যায়। এমনকি খাল থেকে আগত ময়লা পানি জমে থাকায় আমাদের পায়ে হেটে গন্তব্যে যেতে হয়। তাই আমাদের অনেক ভোগান্তি সহ্য করেই এসড়ক দিয়ে চলতে হয়। 

দক্ষিণ সস্তাপুরের ব্যবসায়ী হাকিম মিয়া বলেন, এই সড়কটি চলাচলের জন্য একেবারেই অনুপযোগী হয়ে পরেছে। পুরো সড়কটি বড় বড় গর্ত এমনকি পানি জমে থাকার কারনে ঘটছে দুর্ঘটনা। তাই এ দুর্ঘটনা ও এলাকাবাসীকে চমর ভোগান্তির হাত থেকে রক্ষার্থে সংশ্লিষ্ট মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।  

এ ব্যাপারে ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের মালেক মেম্বারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি যুগের চিন্তা ২৪ কে জানান, রাস্তাটির কাজ আগেই ধরা হতো কিন্তু চেয়ারম্যান সাহেব অসুস্থতার কারনে একট দেরি হচ্ছে। 

এসময় তিনি বলেন, দক্ষিণ সস্তাপুরের রাস্তারটি সংস্কার করার জন্য বিভিন্ন প্রদক্ষেপ হাতে নিয়েছি। আশা করি দ্রুত রাস্তাটি সংস্কারের জন্য ড্রেনেজ ব্যবস্থার কাজ করা হবে। ড্রেনেজ ব্যবস্থার কাজ শেষে রাস্তা সংস্কারের জন্য আমাদের কাজ অব্যাহত থাকবে।  
 

এই বিভাগের আরো খবর