শনিবার   ২৪ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৮ ১৪২৬   ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

এইচএসসির ব্যবহারিকের নামে টাকা আদায়ের অভিযোগ, হুমকি

প্রকাশিত: ১৭ মে ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : সরকারি তোলারাম কলেজে ব্যবহারিক পরীক্ষা ও খাতা তৈরির জন্য প্রাইভেট কোচিং এর নামে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগের জীববিজ্ঞান, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন বিজ্ঞান, গণিতের বিষয়ভিত্তিকের প্রথমপত্র ও দ্বিতীয়পত্র পরীক্ষার খাতা তৈরি ও বেশি নম্বর দেয়ার কথা বলে প্রতিটির বিষয়ের জন্য ৫০০ টাকা করে মোট ৩০০০ টাকা প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে আদায় করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

 

পরীক্ষার্থী কয়েকজন জানান, তোলারাম কলেজের শিক্ষক প্রফেসর মৃদুল ও প্রফেসর সাইদুল ব্যবহারিক পরীক্ষায় খাতা তৈরি ও বেশি নম্বর দেয়ার কথা বলে প্রাইভেট কোচিং করতে আমাদের বাধ্য করেছে। এরজন্য বিষয়প্রতি প্রথম ও দ্বিতীয়পত্রের জন্য ১০০০ টাকা ফি নির্ধারণ করে দিয়েছেন তারা। ধার্য্যকৃত টাকা না দিলে ব্যবহারিক পরীক্ষায় কম নম্বর দেয়াসহ ব্যবহারিক খাতায়ও স্বাক্ষর না করার হুমকি দেয়া হয়েছে। তাদের এমন হুমকিতে সকল পরীক্ষার্থীদের সাথে গরীব ও অসহায় শিক্ষার্থীদের বিপাকে পড়েছেন। প্রাইভেট কোচিং না করায় তারা অনেকেই চিন্তিত। ব্যবহারিক পরীক্ষায় তারা সকলে খারাপ নম্বর পাবেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। 

 

টাকা নেয়ার কথা স্বীকার করে প্রফেসর মৃদুল বলেন, আমি কোচিং বাবদ কোন টাকা নিচ্ছিনা। আমি কিছু শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের অনুরোধে পড়িয়েছি আর তাই প্র্যাক্টিক্যাল বাবদ তাদের কাছ থেকে সাবজেক্ট প্রতি ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা নিচ্ছি। সরকারি বিধিমালা অনুযায়ী আপনি এভাবে অর্থ আদায় করতে পারেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের অনুরোধে পড়াতেই পারি। সে বাবদ অর্থও নিতে পারি। কারা কারা এব্যাপারে অভিযোগ করেছেন সেটি তিনি প্রতিবেদকের কাছে জানতে চান। তিনি বলেন, যারা আমার কাছে পড়েছে তারা আমার কাছে কোচিং করতে পারে।

 

এব্যাপারে তোলারাম কলেজের অধ্যক্ষ বেলা রানী সিংহ বলেন, কোচিং সেন্টারে প্র্যাক্টিকেল করানো একদম নিষেধ করেছি। কলেজেও এব্যাপারে কোন টাকা পয়সাও নেয়া হয়না। শিক্ষার্থীদের প্র্যাক্টিক্যাল কোচিং করার একদম প্রয়োজন নেই। এটা নিষিদ্ধ। কোচিং কিংবা প্রাইভেট পড়ানো দুটোই অপরাধ। যে শিক্ষকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে তাকে আমি এব্যাপারে অবশ্যই ডাকবো, জিজ্ঞাসা করবো এবং বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখে ব্যবস্থা নেবো। 
 

এই বিভাগের আরো খবর