বুধবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ২ ১৪২৬   ১৮ মুহররম ১৪৪১

অতিঃ পুলিশ সুপার মতিয়ার

ঈদে মানুষের নিরাপত্তাই ঈদ আনন্দ

প্রকাশিত: ১২ জুন ২০১৮   আপডেট: ১২ জুন ২০১৮

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : ঈদের বাকী আর মাত্র কয়েকদিন। ঈদের ছুটির আগেই গ্রামের বাড়িতে পরিবার-পরিজন, বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগ করার জন্য ছুটছেন। সবাই কি পরিবার আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ পাওয়ার জন্য গ্রামের বাড়িতে ছুটেছেন? না, অনেকেই আবার ঈদে বাড়ি যেতে পারছেন না।

 

পারছেন না প্রিয়জনদের সাথে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগগি করতে। নারায়ণগঞ্জ পুলিশে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মোহাম্মদ মতিয়ার রহমান। যুগের চিন্তা ২৪’র ঈদ আড্ডায় মোহাম্মদ মতিয়ার রহমান জানান, ঈদে সবাই পরিবারের সাথে একত্রিত হয়ে করতে চায়। সেটা সম্ভব হলে পরিবারের সাথে করবো । আর তা না হলে এখানেই ঈদ উদযাপন করবো। আমার চাকুরীর বয়স ১২ বছর। এরমধ্যে একটি ঈদেও ঈদের আগে ছুটি পাই নি। মাঝখানে একবার মিশনে গিয়েছিলাম পশ্চিম আফ্রিকায় । তখনই একবার ছুটিতে এসে পরিবারের সবাইর সাথে ঈদ উদযাপন করেছিলাম। সাধারণত আমরা ঈদের আগে ছুটি পাই না, ঈদের পরে যদি পাই। ঈদী নিয়ে মজার অনেক স্মৃতি আছে জানিয়ে মতিয়ার রহমান জানান, ঈদে আমাদের বয়োজোষ্ঠ্যদের সালাম করতাম। সালামী পেতাম। এখন আমাদেরকে দিতে হয়। এ ব্যাপারে অনেক মজার স্মৃতি রয়েছে। ঈদের দিন খাবারে মধ্যে সেমাই, খিচুড়ি, মিষ্টি খেতে পছন্দ করি। ঈদের দিন সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠি। পুলিশ মসজিদে নামায আদায় করি। কিছুটা বিরতি দিয়ে পুলিশ লাইন, ইউনিটে কিছু বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা থাকে তাতে অংশগ্রহণ করি। এরপরে বিভিন্ন থানায় যাই। সন্ধ্যায় পুলিশ সুপার, ডিসি সাহেবের বাসায় অনুষ্ঠান থাকে, তাতে অংশগ্রহণ করি। বিশ্বকাপ ফুটবল নিয়ে এএসপি মতিয়ার জানান, আমি আর্জেন্টিনার সমর্থক। আমার স্ত্রীও আর্জেন্টিনার সমর্থক। আমার মেয়ে ফুটবল পছন্দ করে না। ঈদে মজার স্মৃতির কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, আমরা ২৪ ঘন্টা পরিশ্রম করছি। মানুষজন তো আমাদের স্বীকৃতি দেয় নাই। রাস্তায় মানুষের যাতায়াত সার্বক্ষণিক নির্বিঘœ রাখতে পুলিশ যে পরিশ্রম করছে এটা সবাই বুঝে কিংবা উপলদ্ধি করে আমাদর জন্য যদি একটু দোয়া করে তাহলেই আমরা খুশি। তিনি বলেন, আসলে প্রত্যেকটি সংস্থারই কিছু বিচ্যুতি আছে। এর মধ্যে থেকেও আমরা মানুষের সেবায় সার্বক্ষণিক প্রচেষ্টা করে থাকি। ঈদ ছুটিতে মানুষের সার্বক্ষনিক নিরাপত্তা দেয়াটাই আমাদের ঈদ আনন্দ। ঈদ উপলক্ষে জেলায় পুলিশের কার্যক্রম প্রসঙ্গে এএসপি মতিয়ার রহমান জানান, ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক, বিসিক এলাকা হয়ে ঢাকা-মুক্তারপুর সড়ক, চাষাঢ়া সড়ক এলাকা, গোলাকান্দাইল, কাঞ্চন, এশিয়ান হাইওয়েতে যানজট নিরসনে আমাদের টিম সার্বক্ষণিক অর্থাৎ ২৪ ঘন্টাই কাজ করছে। আর এছাড়া থানাগুলোকেও বিভিন্ন নিদের্শনা দেয়া হয়েছে। উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এগুলো সার্বক্ষণিক তদারকি করছেন। ঈদ সবার সুন্দর ও আনন্দের মধ্যে কাটুক এ প্রত্যাশা করে সবাইকে অগ্রীম ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পুলিশের এই উর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

এই বিভাগের আরো খবর