বুধবার   ১৯ জুন ২০১৯   আষাঢ় ৪ ১৪২৬   ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

আমরা আদালতে পাঠাবো আপনারা জামিনে নিয়ে আসবেন : এসপি হারুন (ভিডিও)

প্রকাশিত: ৯ এপ্রিল ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : পুলিশ গ্রেপ্তার করবে জুয়ারীর আসর পরিচালনাকারী, তেলচোর, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী কিংবা মাদকব্যবসায়ী এমন কোন অপরাধী যদি এমপিদের লোকজন হয় তাহলে আইন অনুযায়ী আদালত থেকে জামিন করাতে বলেছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ। তিনি বলেন, আইন সবার জন্য সমান। 

মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে লাঙ্গলবন্দ এলাকায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের স্নান উৎসবে আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক মত বিনিময় সভায় পুলিশ সুপার একথা বলেন। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমান। 

পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ এমপি সেলিম ওসমানকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, আমি যখন কাউকে ধরে আনি, যাদের কোন কাজকর্ম নেই এমন কিছু লোক বলতে শুরু করে, দেখছেন আপনার লোকজনকে পুলিশ ধরে নিয়ে গেল। অথচ তাকে পেয়েছে একটা জায়গায় হয়তো জুয়া খেলা ছিল, অথচ তেল চুরির সঙ্গে ছিল, অথবা মাদক ব্যবসায়ে জড়িত ছিল এমন জায়গা থেকে তাকে ধরে নিয়ে আসছে। এখন সেই লোকটা যদি কারো হয়ে যায়, তাহলে সমস্যা নেই। আপনি তাকে জামিন করাইয়া নিয়া আইসা পড়েন। তাহলে সমস্যা হতোনা কেউ জানলো না। আমি মনে করি উনি (সেলিম ওসমান) যে বক্তব্যটা রেখেছেন আইন সবার জন্য সমান। আমরা আদালতে পাঠাবো আপনারা নিয়া আসবেন। 

পুলিশ সুপার আরও বলেন, উনি (সেলিম ওসমান) ব্যবসা, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের বিষয়ে বলেছেন। আমি আরেকটা উনার সঙ্গে করতে চাই সেটা হলো মাদকটা নারায়ণগঞ্জ থেকে নির্মূল করতে হবে। এটার সঙ্গে যদি আপনি থাকেন তাহলে এখন যেভাবে মাদকের বিরুদ্ধে পুুলিশ অভিযান পরিচালনা করছে আগামীতে আরও দ্বিগুণভাবে অভিযান পরিচালনা করবে। এখন মাদক ব্যবসায়ীদের পাওয়া যায়না, ইয়াবা ব্যবসায়ীদের পাওয়া যায়না, আমরা খুঁজছি।  তেল চোরদের এখন আর পাওয়া যায়না। কারণ ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দিয়ে পালিয়েছে।

তিনি এমপি সেলিম ওসমানকে আরও বলেন, আপনার সংসদীয় এলাকা সদর থানার কালিরবাজারে আমরা এক দিনে ৪১ জন জুয়ারীকে গ্রেপ্তার করেছি। অনেকেই এঁটার সাথে জড়িত। আমরা চাই নারায়ণগঞ্জে একটা সুস্থ্য পরিবেশ বিরাজ করুক। আপনারা যারা আইন প্রণেতা রয়েছেন আমাদের কোন ভুল হলে বলবেন। আমাদের মধ্যে কোন বিরোধ নেই, কোন দ্বন্দ্ব নেই, কোন কথা কাটাকাটি হয় নাই।

এর আগে সেলিম ওসমান তার বক্তব্যে বলেন, আজকের পর থেকে বরফ গলে যাবে। সাংবাদিক ভাইয়েরা আর খোঁচাখুঁচি কইরেন না।

বরফ গলার বিষয়টি সম্পর্কে এসপি বলেন, আমাদের মাঝে কোন বরফই নেই। বরফ গলার কোন প্রশ্নই আসেনা। আমরা উনারকে সম্মান করি উনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। আমি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। সেই হিসেবে উনার প্রতি আমাদের অনেক ভক্তি শ্রদ্ধা থাকবে। উনার এলাকায় আইন শৃঙ্খলার বিষয়ে কাউকে  গ্রেপ্তারের পর উনি যদি বলেন তাহলে অবশ্যই সেটা ভেরিফাই করব এবং ব্যবস্থা নিব।

পুলিশ সুপার বলেন, আমি কাজ করতে চাই। আমরা কাজের সুযোগ চাই। আশা করি নারায়ণগঞ্জ যে একটা প্রাচ্যের ডান্ডি, যে নারায়ণগঞ্জে আওয়ামীলীগের জন্ম হয়েছে, যে নারায়ণগঞ্জে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু এসেছেন। সারা পৃথিবীর মানুষ নারায়ণগঞ্জে ব্যবসা বাণিজ্য করেছেন, সেই নারায়ণগঞ্জকে যদি সুন্দর শহর গড়তে চাই তাহলে অবশ্যই মাদকের বিরুদ্ধে কাজ করতে হবে। সেই কাজটিই আমরা করছি। এখানে অনেক চাঁদাবাজ আছে, অনেক মাদক ব্যবসায়ী আছে, অনেক ভূমিদস্যু আছে, সাধারণ মানুষ তাদের কাছে জিম্মি হয়ে আছে। আমরা শুধু  সেগুলো  দেখতে চাই। 

সেলিম ওসমানকে ধন্যবাদ জানিয়ে এসপি বলেন, উনি পবিত্র মক্কা থেকে উনি আমাকে রিং দিয়েছেন যে, আমার সঙ্গে এক কাপ চা খাবেন। উনি আমাকে   স্নেহ করেন আদর করেন। এ কারণেই করেন উনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। এসময় হিন্দু নেতৃবৃন্দসহ জেলা পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
 

এই বিভাগের আরো খবর