বুধবার   ১৩ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৮ ১৪২৬   ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আপনাদের গুলি দিয়ে যেন কারো বুক ছিদ্র না হয় : মাওলানা আউয়াল

প্রকাশিত: ২১ অক্টোবর ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : নারায়ণগঞ্জ জেলা হেফাজতে ইসলামের আমীর ও ওলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা আব্দুল আউয়াল বলেছেন, যারা ভোলায় এই ঘটনাটি ঘটিয়েছে তাঁদের উপযুক্ত বিচার দেশবাসী দেখতে চায়। এক হিন্দু ইস্কনের সদস্য সে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। কিন্তু আমরা এটা ভিন্ন খাতে প্রভাবিত করতে চাচ্ছি। আসলে কথা হলো শাক দিয়ে মাছ ঢাকা যায় না।

 

তিনি বলেন, আমরা অতীতে দেখেছি কোন মিছিলকে ছত্রভঙ্গ করতে হলে রাবার বুলেট নিক্ষেপ ও ফাঁকা গুলি করা হয়। কিন্তু পাখির মতো গুলি করে মুসলমানদের একেবারে ধরাশায়ী করা এটা কোন ধরনের আইন এবং কোন প্রশাসন ? এটা আমার বুঝে আসেনা। তাই বলতে চাই আপনাদের গুলি দিয়ে যেন, কারো বুক ছিদ্র না হয়।


ভোলায় তৌহিদী জনতা ও পুলিশের সংঘর্ষে ৪ জন নিহতের ঘটনার প্রতিবাদে সোমবার (২১ আক্টোবর) বিকেল ৫টায় ডিআইটির (রাজউক) মার্কেটের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ আয়োজন করে নারায়ণগঞ্জ জেলা ওলামা পরিষদ। এসময় সভাপতির  বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।


মাওলানা আব্দুল আউয়াল বলেন, ভোলার রাজপথ রক্তাক্ত হয়েছে মুসলমানের রক্তে। যেই পুলিশ ভাইদের গুলি মুসলমানদের বুকে পড়েছে সেই পুলিশ ভাইয়েরাও তো মুসলমান। তোমরা কাদের ইশারায় পাখির মতো গুলি করে তাঁদের শহীদের করলে?


এসব লোকদের কি অন্যায়ের প্রতিবাদ করার অধিকার নেই? সাধারণ বিষয় নিয়েও মানুষ রাস্তায় প্রতিবাদ করে। আর আমাদের প্রাণের নবীকে নিয়ে কেউ কটুক্তি করলে সেটার প্রতিবাদ না করলে আমরা মুসলমানদের কাতারেই থাকবো না।


তিনি বলেন, হিন্দু ভাইয়েরা যারা এ দেশে আছে তাঁরা তাঁদের পূজা করে যাচ্ছে কোন মুসলমানরা তাঁদের দিকে তাকিয়েও দেখেনা। যেহেতু মুসলিম ধর্ম সবচেয়ে প্রিয় এবং সংহতির ধর্র্ম; সেখানে কখনও অমুসলিমদের উপর মুসলমানরা অক্রমণ করেনা। কিন্তু তোমাদের কি হলো? তোমরা আমাদের নবীকে কটুক্তি করে আমদের অন্তরে আঘাত দিচ্ছ।


এসময় উপস্থিত ছিলেন, ওলামা পরিষদ নেতা কামালউদ্দিন দায়েমি, মাও. ফেরদৌসুর রহমান, ইসলামী আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সভাপতি মুফতি মাসুম বিল্লাহ, এমকে মোসাদ্দেক, জাকির হোসেন কাসেমী, আব্দুল কাদেও প্রমুখ। 

এই বিভাগের আরো খবর