শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৮ ১৪২৬   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজ বড়দিন উৎসব 

প্রকাশিত: ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : আজ মঙ্গলবার (২৫ ডিসেম্বর) খ্রিষ্টধর্মবলাম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব বড়দিন।  যীশুর জন্মদিন উপলক্ষে পালিত হয় এই দিনটি। আজ থেকে দুই হাজার বছর আগে পৃথিবীতে জন্মগ্রহন করেছিলেন গ্রীক ক্রিসটাস। মানব জাতিকে সৎ ও ন্যায়ের পথে পরিচালিত করতে যীশুর আর্বিভাব ঘটেছিল পৃথিবীতে। 

খ্রিষ্টানধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাসানুসারে কুমারী মারিয়ার গর্ভে পবিত্র আত্মা কর্তৃক যীশু জন্ম হয়েছিল। পবিত্র বাইবেলে প্রায় তিনশতের অধিক বার যীশুর জন্মের ভবিষ্যত বাণী করেছিলেন। যীশু খ্রিষ্ট একমাত্র ব্যক্তি যিনি এখনও স্বর্গে জীবিত অবস্থায় অবস্থান করছেন।

যীশু একাধারে মানুষ ও একধারে ঈশ্বর ছিলেন। যীশু বলছেন “আমার পথ সত্য আমিই উওম মেষ পালক আমিই দ্রাক্ষা লতা আমিই মেঘ দিগের দার আমিই জীবন খাদ্য আমিই জগতের জাতি আমিই পুনরুত্থান। তাইতো যীশুর আগমনে রয়েছে স্বর্গরাজ্যে যাবার সুযোগ।” 

যীশু বলছেন “দেখ আমি দাড়াইয়া আছি ও আঘাত  করেতেছি কেহ যদি আমার রব শুনে দ্বার খুলে দেয় আমি তাহার কাছে প্রবেশ করিব এবং তাহার সহিত ভোজন করিব।” যীশু মানুষকে পাপ থেকে মুক্তি দেওয়ার জন্য পৃথিবীর আর্বিভাব হয়েছেন। তিনি আপনার জীবনে আসতে চান। 

শান্তির ধারক যীশু খ্রিষ্ট। কুমারী মারিয়ার গর্ভে জন্মগ্রহন করে তিনি সত্যি আমাদের পরিত্রাণ দিয়েছেন যেন আমরা আধ্যিতিকতায় ঈশ্বর হয়ে উঠতে পারি। বড়দিন আমাদের ঈশ্বর পুত্র আধ্মতিœক মানুষ হওয়ার পথ প্রদর্শক। বড়দিন মানে পৃথিবীর মাঝে স্বর্গের এক দূতাবাস স্থাপন। বড়দিন মানে যীশুই পথ অকপটেত্য স্বীকার করা। বড়দিন মানে রাজ্য হয়ে প্রজার মাঝে মিশে যাওয়া।

 তাই এই বড় দিনটিকে উদযাপন করতে নারায়নগঞ্জের প্রতিটি গীর্জায় সাজসজ্জা প্রার্থনা সভা ধর্মীয় আলোচনা ও প্রসাদ বিতরনসহ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিনটি পালিত হবে।