মঙ্গলবার   ১২ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৮ ১৪২৬   ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

অবশেষে ডিবির সেই এসআই আরিফ ফোন ধরলেন!

প্রকাশিত: ২১ অক্টোবর ২০১৯  

যুগের চিন্তা ২৪ : ১৯ অক্টোবর (শনিবার) মধ্যরাত ফতুল্লার ধর্মগঞ্জ পাকাপুল এলাকায় অভিযান চালান নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের এসআই আরিফুর রহমান এসময় তিনি মেহেদী নামে একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেন সূত্র জানায়, আটক মেহেদীকে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয় তখনই

 

আটক মাদক ব্যবসায়ী মেহেদী ফতুল্লার ধর্মগঞ্জ পাকাপুল এলাকার কালামের ছেলে স্থানীয় পর্যায়ে তিনি একজন চিহ্নিত মাদক কারবারি হিসেবেই পরিচিত

 

এদিকে স্থানীয় পর্যায় থেকে মেহেদী আটকের খবর জেনে এর সত্যতা নিশ্চিত হতে ২০ অক্টোবর (রোববার) ডিবি পুলিশের এসআই আরিফুর রহমানের মুঠোফোনে কল করা হয় কিন্তু অপ্রিয় হলেও সত্য, এই অফিসার কোনো সংবাদকর্মীরই ফোন রিসিভ করেননি

 

পরবর্তীতে এর সত্যতা জানতে জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার (ডিএসবি) ডিআইও-থ্রি শাহাদাৎ হোসেন শান্তকেও কল করা হয় তবে, বিষয়টি তিনি অবগত না থাকার কারণে কোনো রকম তথ্য জানাতে পারেননি

 

অন্যদিকে ধর্মগঞ্জ পাকাপুল এলাকার বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে, শনিবার মধ্যরাতে মেহেদীকে আটকের পর থেকেই শুরু হয় দেনদরবার আটক মাদক ব্যবসায়ীকে ছাড়ার জন্য মোটা অঙ্কের টাকাও নাকি চেয়েছিলেন এসআই আরিফুর রহমান

 

শনিবার শেষ রাত থেকে শুরু হয়ে এই দেনদরবার চলে রোববার রাত সাড়ে ১০ টা পর্যন্ত ততক্ষণ ডিবি পুলিশের হেফাজতেই ছিলেন ওই মাদক ব্যবসায়ী

 

এদিকে আসামীকে ছাড়ার জন্য দেন-দরবার এবং তার সাথে কী পাওয়া গেছে, এমন কাউকে আদতে আটক করা হয়েছিলো কিনা, এমন তথ্য জানতে রোববার দিনভরই এসআই আরিফের সাথে বিভিন্ন গণমাধ্যমকর্মীরা মুঠোফোনে কল করেন সবার একই বক্তব্য, অফিসার ফোন ধরছেন না! নিয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন

 

তবে, শেষতক রোববার রাত প্রায় ১২ টার দিকে একজন গণমাধ্যমকর্মী এসঅই আরিফুর রহমানের মুঠোফোনে কল করলে তিনি তা রিসিভ করেন এবং মেহেদীকে আটকের সত্যতা নিশ্চিত করেন

 

এসআই আরিফুর রহমান ওই গণমাধ্যমকর্মীকে জানান, “মেহেদীকে আটক করা হয়েছে তার সাথে ইয়াবা পাওয়া গেছে সোমবার তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবেতবে, কী পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছিলো তা জানতে চাইলেইয়াবার পরিমাণ সোমবার জানানো হবেওই গণমাধ্যমকর্মীকে এমনটাই জানান ডিবির ওই এসআই

 

এদিকে সোমবার (২১ অক্টোবর) আটক মাদক ব্যবসায়ীকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে কিনা এবং তার কাছ থেকে কি পরিমাণ ইয়াবা পাওয়া গেছে, এর সত্যতা জানার জন্য অন লাইন নিউজ পোর্টাল নারায়ণগঞ্জ টুডে এক প্রতিবেদক এদিন বিকেলে এসআই আরিফকে একাধিকবার কল করার পর তিনি তা রিসিভ করেন

 

শুরুতে তিনি মেহেদীকে আটকের সত্যতা স্বীকার করেন পরবর্তীতে শনিবার মধ্যরাতে মেহেদীকে আটক করেছিলেন, এমন প্রশ্ন করতেই তিনি আমতা আমতা করেকি বলেন এগুলা!’ বলেই কলটি কেটে দেন

 

পরবর্তীতে এই প্রতিবেদক তাকে আবারও কল করেন তখন আর তিনি কলটি ধরেননি পরে আরিফুর রহমান নিজেই কল করেন, বলেন, “ ব্যাপারে মামলা হয়েছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের এসআই শহিদের সাথে কথা বলেন

 

এরপর আবারও তিনি লাইন কেটে দেন পরবর্তীতে এই প্রতিবেদক পুনরায় কল করলে তিনি রিসিভ করেন এবং বলেন, “আমরাতো তাকে আটক করে অভিযান চালিয়েছি অভিযানতো ব্যর্থ হয়নি

 

ডিবির এই এসআইয়ের কাছে জানতে চাওয়া হয়, ‘আটক মেহেদীর কাছ থেকে কত পিস ইয়াবা পাওয়া গিয়েছিলো?’ এর জবাবে আরিফ বলেন, “তার কাছ থেকে প্রথমে ১শ পিস, পরে তার আরেক সহযোগির কাছ থেকে ১শ ২০ পিস এবং তার আরেক সহযোগির কাছ থেকে আরও ৫শ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়

 

তিনি আরও বলেন, “ অভিযানে মেহেদীসহ মোট চারজনকে আটক করা হয়েছে ব্যাপারে মামলা হয়েছে দেন-দরবার বলতে আমরা কিছু দাবি করিনি তারা চেয়েছিলো দেন-দরবার করতে আমরা রাজি হইনি সেটি করলেতো মামলা দিতাম না আসামী যখন আটক হয় তখন তাদের লোকজন সুবিধা করতে না পেরে নানা কথাই ছড়িয়ে থাকেন এসব সত্য নয়

 

এছাড়াও ফোন না ধরা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আসলে অভিযান চালিয়ে পরে ঘুমিয়ে পড়েছিলাম তাই ফোন ধরা সম্ভব হয়ে উঠেনিকিন্তু এর আগেও অন্য অভিযান সম্পর্কে জানতে গিয়ে বিভিন্ন সময় কল করা হলেও আপনি তা রিসিভ করেননি, এমন অভিযোগ করলে তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন

এই বিভাগের আরো খবর